নতুন করদাতা কখন হবেন? এবং করদাতা হলে সরকার থেকে কি কি সুবিধা পাবেন?

//নতুন করদাতা কখন হবেন? এবং করদাতা হলে সরকার থেকে কি কি সুবিধা পাবেন?

নতুন করদাতা কখন হবেন? এবং করদাতা হলে সরকার থেকে কি কি সুবিধা পাবেন?

নতুন করদাতা কখন হবেন? এবং করদাতা হলে সরকার থেকে কি কি সুবিধা পাবেন

আগামী মাসের ১৩ তারিখ অর্থাৎ নভেম্বর মাসের ১৩ তারিখ থেকে শুরু হতে যাচ্ছে আয়কর মেলা। সপ্তাহ ব্যাপি চলবে এই মেলা।

মেলায় আয়কর রিটার্ন দাখিল করা অনেক সহজ এবং ঝামেলা মুক্ত। তাই সব কর দাতাই চান মেলায় তাদের রিটার্ন দাখিল করতে।

সেই হিসেবে মাত্র এক মাস হাতে আছে। দেখা যাবে দরকারি কাগজপত্র সংগ্রহ করতে করতেই মেলা শুরু হয়ে গেছে।

যারা আগে থেকেই কর দিয়ে আসছেন তারা হয়তো জানেন একজন করদাতা কখন আয়কর রিটার্ন দাখিল করার জন্য উপযুক্ত হন। কিন্তু যারা নতুন তারা হয়তো একটু অনিশ্চয়তার মধ্যে থাকেন।

নতুন করদাতা কখন হবেন?

প্রথম কথা হলো আপনি করদাতা হতে চাইলে বা যদি আপনার আয়কর যোগ্য হয়ে থাকে তাহলে আপনার টিন থাকতে হবে। কেবল তাহলেই আপনি করদাতা হতে পারবেন।

আপনার যখন টিন হয়ে যাবে তার পর প্রশ্ন আসে এবার কি আপনাকে রিটার্ন দাখিল করতে হবে কিনা? বা টিন থাকলেই কি রিটার্ন দাখিল করতে হয়?

টিন এর সাথে রিটার্ন দাখিল করার মধ্যে কিছু পার্থক্য রয়েছে। টিন থাকলেই আয়কর রিটার্ন দাখিল করা বাধ্যতা মূলক নয়।

আবার রিটার্ন দাখিল করলেই আয়কর দেওয়ার দরকার হয়না। আয়কর তখনই দিতে হয় যখন একজন ব্যক্তির করযোগ্য আয় থাকে।

যেমন, এখন ১৬,০০০ টাকা বা তার বেশি যদি কোন চাকরিজীবী মূলবেতন পান তাহলে তাকে রিটার্ন দাখিল করতে হয়। এখন তিনি রিটার্ন দাখিল করলেন, কিন্তু তার করযোগ্য আয় ২৫০,০০০ টাকা অতিক্রম করেনি। তাহলে তাকে কর দিতে হবেনা।

তাহলে মূলকথা হলো, আপনি তখনই একজন নতুন করদাতা হবেন যখন আপনার আয় করযোগ্য সীমা অতিক্রম করবে।

একজন করদাতা হতে হলে রিটার্ন দাখিল করতে হয় তা আগে বলেছি। তবে নিম্নবর্ণিত ক্ষেত্রসমূহে আয়ের পরিমান যাই হোকনা কেন, ব্যক্তি করদাতাকে সংশ্লিষ্ট আয় বছরের জন্য আবশ্যিক ভাবে আয়কর রিটার্ন দাখিল করতে হবেঃ

১।কোন কোম্পানির শেয়ার হোল্ডার পরিচালক বা শেয়ারহোল্ডার চাকরীজীবী;

২।কোন ফার্মের অংশীদার;

৩।সরকারি কোন প্রতিষ্ঠানের কর্মচারী হয়ে আয় বছরের যেকোন সময় ১৬,০০০ টাকা বা তদূর্ধ্ব পরিমান মূলবেতন আহরণ করে থাকলে;

৪।কোন ব্যবসায় বা পেশায় নির্বাহী বাব্যবস্থাপনা পদে, যে নামেই অভিহিত হোকনা কেন, বেতনভোগী কর্মী হয়ে থাকলে।

এর বাইরে কিছু ক্ষেত্রে শর্তস্বরূপ আয়কর রিটার্ন দেখাতে হয়। যেমন, জাতীয় নির্বাচন থেকে শুরু করে স্থানীয় পর্যায়ের নির্বাচনে অংশ গ্রহণকারী, দরপত্রে অংশগ্রহণকারী, সমাজের কোন প্রতিষ্ঠিত ক্লাবের সদস্য ইত্যাদি।

যেসব ক্ষেত্রে এমন শর্ত রয়েছে যে বাধ্যতামূলকভাবে জাতীয় রাজস্ব বোর্ডে আয়কর রিটার্ন দাখিল করতে হবে সেগুলো হলোঃ

১।মোটর গাড়ির মালিক (মোটরগাড়ি বলতে জীপ বা মাইক্রোবাসকে ও বুঝাবে);

২।মূল্যসংযোজন কর আইনের অধীন নিবন্ধিত কোন ক্লাবের সদস্য;

৩।কোন সিটি কর্পোরেশন, পৌরসভা বা ইউনিয়ন পরিষদ হতে ট্রেড লাইসেন্স গ্রহণ করে কোন ব্যবসা বা পেশা পরিচালনা করে থাকেন এমন ব্যক্তি;

৪।চিকিৎসক, দন্ত চিকিৎসক, আইনজীবী, চার্টার্ড অ্যাকাউন্ট্যান্ট, কস্ট অ্যান্ড ম্যানেজমেন্ট অ্যাকাউন্ট্যান্ট, প্রকৌশলী, স্থপতি অথবা সার্ভেয়ার হিসেবে বা সমজাতীয় পেশাজীবী হিসেবে কোন স্বীকৃত পেশাজীবী সংস্থার নিবন্ধন ভূক্ত ব্যক্তি;

৫।জাতীয় রাজস্ব বোর্ডে নিবন্ধিত আয়কর পেশাজীবী;

৬।কোন বণিক বা শিল্প বিষয়ক চেম্বার বা ব্যবসায়িক সংঘ বা সংস্থার সদস্য;

৭।কোন পৌরসভা বা সিটি কর্পোরেশনের কোন পদে বা সংসদ সদস্য পদে প্রার্থী হওয়া;

৮।কোন সরকারি, আধা-সরকারি, স্বায়ত্বশাসিত সংস্থা বা কোন স্থানীয় সরকারের কোন দরপত্রে অংশগ্রহণকারী;

৯।কোন কোম্পানির বা কোন গ্রুপ অফ কোম্পানিজের পরিচালনা পরিষদে থাকা।

তাহলে উপর থেকে জানলেন কখন একজন ব্যক্তি নতুন করদাতা হবেন। সরকার প্রতি বছরই চেষ্টা করে করদাতার সংখ্যা বাড়াতে।

করদাতারা সরকার থেকে কি কি সুবিধা পাবেন?

করদাতারা সরকার থেকে বিভিন্ন সুযোগ সুবিধা পেয়ে থাকেন। যেমন, সরকারি হাসপাতালগুলোতে খুবই কম খরচে সেবা নিতে পারেন। তবে আপনি বলতে পারেন, করদাতা না হয়েও আপনি এই সুবিধা অন্যান্য নাগরিকের মতো নিতে পারেন।

তা ঠিক।

কিন্তু আপনার যখন আয় বাড়তে থাকবে তখন আপনি বিভিন্ন ব্যক্তিগত সুবিধা নিতে থাকবেন যেটা অন্যরা নিতে পারবে না।

আপনি যদি ক্রেডিট কার্ড নিতে চান তাহলে আপনার ট্যাক্স সার্টিফিকেট লাগবে। আপনি যদি সরকারি বা বেসরকারি ঠিকাদারি কাজ করতে চান তাহলে টিন লাগবে। দেশের বাইরে বেড়াতে গেলে ট্যাক্স সার্টিফিকেট লাগবে ইত্যাদি।

তাই আয়কর দেওয়ার মাধ্যমে করদাতা হলে সরকারের কাছ থেকে যেমন সুবিধা পেতে পারেন আবার তেমনি ব্যক্তিগতভাবে অন্যান্য সুবিধাও বিভিন্ন জায়গা থেকে পেতে পারেন।

তাই যখনই আমাদের করযোগ্য আয় হবে তখনই স্বতঃস্ফূর্ত ভাবে করদাতা হয়ে যাবো। আর এখন কর দেওয়াও অনেক সহজ। আপনি ঘরে বসেই তৈরি করতে পারেন আপনার আয়কর রিটার্ন। এ জন্য রয়েছে bdtax.com.bd এখানে লগইন করে এখনই তৈরি করে নিতে পারেন আপনার আয়কর রিটার্ন।

জসীম উদ্দিন রাসেল
FACEBOOK
©BDTax.com.bd 2018

 

By | 2018-10-16T06:26:40+00:00 October 7th, 2018|Income Tax|4 Comments

About the Author:

4 Comments

  1. Md.Rahamat Ullah October 9, 2018 at 7:55 am - Reply

    NICE

    • bdtaxsupport November 4, 2018 at 4:39 am - Reply

      ধন্যবাদ। BDTax.com.bd স্ব-নির্দেশিত সফটওয়্যার এবং এটি স্বয়ংক্রিয়ভাবে আপনাকে প্রতিটি পদক্ষেপ দেখিয়ে দেবে।

      প্রথমে এই লিঙ্কটি দিয়ে যান এবং BDTax এ আপনার Account খুলুন।
      https://bdtax.com.bd/index.php/user/registration/individual

  2. Dilip October 22, 2018 at 8:46 am - Reply

    আমার টিন ২০১৩ থেকে, আমি এই পর্যন্ত রিটার্ন দেই নি, ১৫-১৬, ১৬-১৭, ইনকাম ট্যাক্স আসলে ও দিতে পারিনি, এখন মেলাতে কি বিগত সালের সহ দেওা যাবে কি না?

    • bdtaxsupport November 4, 2018 at 4:47 am - Reply

      আপনি আপনার ২০১৮-২০১৯ সালের রিটার্ন আমাদের সিস্টেমে করে মেলায় নিয়ে যান। পরবর্তীতে আপনার কি করতে হবে তা মেলায় আপনাকে বলে দেওয়া হবে। কিন্তু পূর্ববর্তী রিটার্ন করার আগে আপনার ২০১৮-২০১৯ এর রিটার্নটি অবশ্যই করতে হবে। BDTax.com.bd স্ব-নির্দেশিত সফটওয়্যার এবং এটি স্বয়ংক্রিয়ভাবে আপনাকে প্রতিটি পদক্ষেপ দেখিয়ে দেবে।

      প্রথমে এই লিঙ্কটি দিয়ে যান এবং BDTax এ আপনার Account খুলুন।
      https://bdtax.com.bd/index.php/user/registration/individual ধন্যবাদ।

Leave A Comment

*

Shares
error: Content is protected !!