Notice: Undefined index: action in /var/www/blog-bdtax/wp-content/themes/bdtax-blog/functions.php on line 2
নতুন কর আইনে কতো পর্যন্ত বিনিয়োগ সুবিধা পাওয়া যাবে? - BDTAX BLOG

নতুন কর আইনে কতো পর্যন্ত বিনিয়োগ সুবিধা পাওয়া যাবে?

/, Income Tax Act 2023, Investment allowance, Tax Filing, Tax Rebate, Tax return/নতুন কর আইনে কতো পর্যন্ত বিনিয়োগ সুবিধা পাওয়া যাবে?

নতুন কর আইনে কতো পর্যন্ত বিনিয়োগ সুবিধা পাওয়া যাবে?

আয়কর আইন ২০২৩-এ একজন ব্যক্তি করদাতা কতো টাকা কর রেয়াত সুবিধা পাবেন তা উল্লেখ রয়েছে। কিন্তু কতো টাকা পর্যন্ত বিনিয়োগ ভাতা হিসেবে দেখানো যাবে তা উল্লেখ নেই।

বিনিয়োগ ভাতা একজন ব্যক্তি করদাতার জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। কারন, একজন ব্যক্তি করদাতা সারা বছর ধরে যে আয় করেন তা থেকে অব্যাহতি বাদ দিয়ে যে করযোগ্য আয় বের হয় তার উপর কর দিয়ে থাকেন। এবং এই করদায় কমানোর অন্যতম উপায় হলো কর রেয়াত।

কোন করদাতা যদি এই কর রেয়াত সুবিধা ভোগ করে করদায় কমাতে চান তাহলে তাকে আয়কর আইনে উল্লেখিত খাতে বিনিয়োগ বা দান করতে হয়। এই বিনিয়োগ বা দান যদি আয়কর আইন অনুযায়ী হয় তাহলে তা বিনিয়োগ ভাতার আওতায় পরে। এবং এই বিনিয়োগ ভাতার উপরই একজন ব্যক্তি করদাতা কর রেয়াত সুবিধা পেয়ে থাকেন।

তাই একজন ব্যক্তি করদাতা সারা বছর ধরে আয়ের পাশাপাশি অল্প অল্প করে উল্লেখিত খাতে বিনিয়োগ বা দান করতে থাকেন। এতে করে বছর শেষে চাপ পড়ে না। এজন্য বছরের শুরুতেই যদি বিনিয়োগ ভাতার পরিমান জানা যায় তাহলে করদাতা বছরের শুরতেই প্ল্যান করে বিনিয়োগ বা দান করতে পারেন।

এখন প্রশ্ন হলো আপনি কতো বিনিয়োগ বা দান করতে পারবেন?

যেটা শুরুতেই বলেছি, আয়কর আইন ২০২৩-এ বিনিয়োগ ভাতা কতো তা উল্লেখ নেই। পূর্বের আয়কর অধ্যাদেশ-এ প্রথমে বিনিয়োগ ভাতার পরিমান কীভাবে বের করতে হবে তা বলা ছিলো। এবং বিনিয়োগ ভাতা পাওয়ার পর কর রেয়াত হার ব্যবহার করে কর রেয়াত বের করতে হতো।

কিন্তু আয়কর আইন ২০২৩-এ একজন ব্যক্তি করদাতা কর রেয়াত কতো পাবেন তা উল্লেখ রয়েছে। তাই আপনি প্রথমে কর রেয়াত বের করুন। তারপর বিনিয়োগ ভাতা বের করুন।

তাহলে প্রথমেই চলুন, আয়কর আইন ২০২৩-এ কর রেয়াত সম্পর্কে কী বলা আছে তা জেনে নেই। নিচের তিনটি অংকের মধ্যে যে অংকটি ছোট হবে তাই হবে একজন ব্যক্তি করদাতার কর রেয়াতঃ

১। করযোগ্য আয়ের ৩%; অথবা

২। প্রকৃত বিনিয়োগের ১৫%; অথবা

৩। দশ লাখ টাকা।

তাহলে আপনি জানলেন ওপরে উল্লেখিত তিনটি অংকের মধ্যে যে অংকটি ছোট হবে তাই হবে আপনার কর রেয়াত। এবার আমরা বের করবো কতো বিনিয়োগ করতে পারবেন।

উপরে ২ নম্বর সিরিয়ালে দেখুন বলা আছে আপনার প্রকৃত বিনিয়োগের ১৫% কর রেয়াত পাওয়া যাবে। তাই প্রথমে আপনি আপনার করযোগ্য আয়ের ৩% বের করুন। ধরুন, আপনার করযোগ্য আয় ১০,০০,০০০ টাকা। তাহলে এই করযোগ্য আয়ের ৩% হলো ৩০,০০০ টাকা। অর্থাৎ, আপনি এই টাকা কর রেয়াত পাবেন। যেহেতু ২ নম্বর সিরিয়ালে বিনিয়োগের উপর ১৫% কর রেয়াত পাওয়ার কথা উল্লেখ রয়েছে তাই এবার আপনি কর রেয়াত ৩০,০০০ টাকাকে ১৫% বা ০.১৫ দিয়ে ভাগ করুন। ভাগ করলে আসবে ২,০০,০০০ টাকা। এই ২,০০,০০০ টাকাই হলো আপনার বিনিয়োগ ভাতা।

আপনি কীভাবে বিনিয়োগ ভাতা বের করতে হয় তা জেনে গেলেন। এবার আপনি আপনার পছন্দ মতো আয়কর আইন ২০২৩-এ উল্লেখিত খাতে বিনিয়োগ বা দান করুন।

উল্লেখ্য, আয়কর আইন ২০২৩-এ একজন করদাতা কোথায় বিনিয়োগ বা দান করতে পারবেন এবং সর্বোচ্চ কতো বিনিয়োগ করতে পারবেন সে সম্পর্কে কিছু পরিবর্তন এসেছে। এই পরিবর্তনগুলো জেনে তারপর বিনিয়োগ করুন তাহলে সম্পূর্ণ কর রেয়াত সুবিধা পেয়ে আপনার করদায় হ্রাস করতে পারবেন। এ সম্পর্কে জানতে নিয়মিত বিডিট্যাক্স ওয়েবসাইটে ভিজিট করুন। পরবর্তীতে এ সম্পর্কে লেখা প্রকাশিত হবে।

 

জসীম উদ্দিন রাসেল

About the Author:

Leave A Comment

*


Notice: Undefined offset: 0 in /var/www/blog-bdtax/wp-content/plugins/cardoza-facebook-like-box/cardoza_facebook_like_box.php on line 924
Shares
error: Content is protected !!