ব্যক্তি করদাতা তার আয়কর রিটার্নে তহবিলের ঘাটতি (শর্টেজ অফ ফান্ড) কিভাবে মিলাবেন ?

/, Tax Filing, Tax return/ব্যক্তি করদাতা তার আয়কর রিটার্নে তহবিলের ঘাটতি (শর্টেজ অফ ফান্ড) কিভাবে মিলাবেন ?

ব্যক্তি করদাতা তার আয়কর রিটার্নে তহবিলের ঘাটতি (শর্টেজ অফ ফান্ড) কিভাবে মিলাবেন ?

ব্যক্তি করদাতা আয়কর রিটার্নে তহবিলের ঘাটতি (শর্টেজ অফ ফান্ড) বলতে বুঝায় আয়, ব্যয়, সম্পদ এবং দায়ের মধ্যে অসামঞ্জস্যতা। সাধারণত ব্যক্তি করদাতা আয়কর রিটার্নে- আয়, ব্যয়, সম্পদ এবং দায়ের সঠিক ও পরিপূর্ণ উপস্থাপন না করলে তহবিলের ঘাটতি (শর্টেজ অফ ফান্ড) দেখা দেয়। তহবিলের ঘাটতি (শর্টেজ অফ ফান্ড) দুই প্রকার হয়ে থাকে। সেগুলো হলো – ধনাত্মক তহবিলের পরিমান (পজিটিভ শর্টেজ অফ ফান্ড) এবং ঋণাত্মক তহবিলের পরিমান (নেগেটিভ শর্টেজ অফ ফান্ড)। তহবিলের ঘাটতি (শর্টেজ অফ ফান্ড) এটাই প্রতীয়মান করে যে, আয়কর রিটার্নটি স্বচ্ছ এবং নির্ভুল ভাবে প্রস্তুত করা হয়নি। যার ফলে আয়কর রিটার্নটি নিয়ে ব্যক্তি করদাতা ভবিষ্যতে নানা প্রকার আয়কর বিষয়ক সমস্যার সম্মুখীন হতে পারেন।

নিম্নে ব্যক্তি করদাতার আয়কর রিটার্নে ধনাত্মক এবং ঋণাত্মক তহবিলের পরিমান সাধারণত কিভাবে হয় তার উদাহরণ দেয়া হলো:

ধরে নেই, জনাব কবির তার আয়কর রিটার্নে অর্থ বছরে বাৎসরিক আয় প্রদর্শন করেছেন ৫,০০,০০০ টাকা। তিনি আয়কর রিটার্নে সম্পদ প্রদর্শন করেছেন ২,০০,০০০ টাকা এবং ব্যয় প্রদর্শন করেছেন ১,০০,০০০ টাকা। তাহলে তার আয়কর রিটার্নে ধনাত্মক তহবিলের পরিমান (পজিটিভ শর্টেজ অফ ফান্ড) হবে ২,০০,০০০ টাকা। 

আবার ধরে নেই, জনাব মারুফ তার আয়কর রিটার্নে অর্থ বছরে বাৎসরিক আয় প্রদর্শন করেছেন ৫,০০,০০০ টাকা। তিনি আয়কর রিটার্নে সম্পদ প্রদর্শন করেছেন ৪,০০,০০০ টাকা এবং ব্যয় প্রদর্শন করেছেন ২,০০,০০০ টাকা। তাহলে তার আয়কর রিটার্নে ঋণাত্মক তহবিলের পরিমান (নেগেটিভ শর্টেজ অফ ফান্ড) হবে ১,০০,০০০ টাকা। 

উপরোক্ত দুটি উদাহরণে ব্যক্তি করদাতার আয়কর রিটার্নে তহবিলের ঘাটতি (শর্টেজ অফ ফান্ড) আছে। এর থেকে এটিই প্রতীয়মান হয় যে, উদাহরণের উভয় ব্যক্তির আয়কর রিটার্নে তাদের আয়, ব্যয় এবং সম্পদ সঠিকভাবে উপস্থাপিত হয়নি ।

bdtax.com.bd এর মাধ্যমে আয়কর রিটার্ন প্রস্তুতকালে তহবিলের ঘাটতি (শর্টেজ অফ ফান্ড) মিলানোর জন্যে সাধারণ গাইডলাইন নিম্নে দেয়া হলো।

১. যদি ব্যক্তি করদাতার আয়কর রিটার্নে ধনাত্মক তহবিলের পরিমান (পজিটিভ শর্টেজ অফ ফান্ড) থাকে তাহলে কিছু অর্থ খরচ (Expense) বিভাগের অধীনে বিভিন্ন খরচের খাতে এবং কিছু অর্থ সম্পদ (Assets) বিভাগের অধীনে হাতে নগদ (Cash In Hand) হিসাবে দেখাতে পারেন। ফলে আয়, সম্পদ এবং ব্যায়ের অসামঞ্জস্যতা দূর হবে।

২. যদি ব্যক্তি করদাতার আয়কর রিটার্নে ঋণাত্মক তহবিলের পরিমান (নেগেটিভ শর্টেজ অফ ফান্ড) থাকে তাহলে বুঝতে হবে উক্ত ব্যক্তি করদাতা আয় থেকে ব্যয় এবং সম্পদের পরিমাণ বেশি দেখিয়েছেন। সেক্ষেত্রে কিছু অর্থ, খরচ (Expense) বিভাগের অধীনে বিভিন্ন খরচের খাত থেকে এবং কিছু অর্থ  সম্পদ (Assets)  বিভাগের অধীনে হাতে নগদ (Cash In Hand) হিসাব থেকে কমিয়ে দেখাতে পারেন। ফলে আয়, সম্পদ এবং ব্যায়ের অসামঞ্জস্যতা দূর হবে।

মনে রাখতে হবে যে, আয়কর রিটার্নের কেস অনুযায়ী বিভিন্ন আইনসিদ্ধ উপায়ে তহবিলের ঘাটতি (শর্টেজ অফ ফান্ড) মিলাতে হয়। আদৰ্শ তহবিলের ঘাটতি (শর্টেজ অফ ফান্ড) হবে শুন্য (০)। অনেকেই তহবিলের ঘাটতি (শর্টেজ অফ ফান্ড) মিলানোর জন্যে সবসময়ই হাতে নগদ (Cash In Hand) বাড়িয়ে বা কমিয়ে দেখান। যা সর্বদা সঠিক পন্থা নয়। কেননা তহবিলের ঘাটতি (শর্টেজ অফ ফান্ড) আয়ের সাথে ব্যয়ের সামঞ্জস্য, আয়ের সাথে হাতে নগদের সামঞ্জস্য, সম্পদ প্রাপ্তি, মূলধনী মুনাফা লব্ধ আয়, দায়, নীট সম্পদ ইত্যাদি আরো অনেক কিছুর ওপর নির্ভর করে।

যেসকল ব্যক্তি করদাতা তাদের আয়কর রিটার্ন bdtax.com.bd এর স্বয়ংক্রিয় সফটওয়ারের মাধ্যমে প্রস্তুত করবেন তারা চাইলে তাদের আয়কর রিটার্নে তহবিলের ঘাটতি (শর্টেজ অফ ফান্ড) আইনসিদ্ধ উপায়ে মিলানোর জন্যে bdtax.com.bd এর অভিজ্ঞ ট্যাক্স কনসালটেন্টদের দ্বারা আয়কর রিটার্নটি মূল্যায়ন বা রিভিউ করিয়ে নিতে পারেন। এতে করে ব্যক্তি করদাতার আয়কর রিটার্নটি একদিকে যেমন স্বচ্ছ এবং নির্ভুল হবে অন্যদিকে আয়কর রিটার্নে ভুল হওয়ার দরুন সৃষ্ট বিভিন্ন ঝামেলাও এড়িয়ে যেতে পারবেন। তাই দেরি না করে আপনার আয়কর রিটার্ন খুবেই সহজে এবং অতি অল্প খরচে প্রস্তুত করতে আজই রেজিস্ট্রেশন করুন।  

সাজ্জাদ হোসেন শরীফ

By | 2022-04-07T08:46:33+00:00 November 30th, 2021|Income Tax, Tax Filing, Tax return|0 Comments

About the Author:

Leave A Comment

*

Shares
error: Content is protected !!